সীমানাসাশিত দেশপ্রেম হচ্ছে আধুনিক পৃথিবীর সবচে বর্বর দাসত্ব৷

এই ‘সোনার বাংলা’ বা ‘ভারতভাগ্যবিধাতা’ দিয়ে যে দেশপ্রেমের সবক রাষ্ট্র কর্তৃক শেখানো হয়, তা দিয়ে মূলত আমাকে ঘৃণা করতে শেখানো হলো— তোর দেশ বাদে দুনিয়ার তাবৎ জাতি ভালোবাসার অযোগ্য৷

কী আশ্চর্য! কাগজের মানচিত্রে একটা রেখা টেনে বলে দিলেন— তোর ভালোবাসার সীমানা ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইল! এই সীমানার বাইরের কেউ তোর কিচ্ছু না৷ এই সীমানার ভেতরের সবাই তোর আপনজন৷ বাদবাকি পুড়ে যাক আকিয়াব-মসুল, সিরিয়া-রাখাইন… তোর কী?

রাষ্ট্রভিত্তিক এমন দাসত্বকে কীভাবে আপনি সভ্যতা বলবেন?

সীমানার পঞ্চাশ কিলোমিটার বাইরে তিনশো ষাট জনকে কুপিয়ে হত্যা, একই গ্রামের পয়ত্রিশ জন মেয়েকে দিনের আলোতে সবার সামনে একের পর এক ক্রমাগত ধর্ষণ, পনেরোশো ঘর-বাড়ি আগুনে পুড়িয়ে পোড়ামাটি করে ফেলা, আশ্রয়ের আশায় লাখ লাখ মানুষের গগনবিদারী আর্তনাদ…

আপনাকে বলা হলো— তারা ভিন্ন দেশি, আপনার সামনে বুভুক্ষ কাঁটাতার, সীমান্তে সীমান্তে ব্যারিকেড! জাস্ট স্টপ ইউর স্টেপ হেয়ার!

কারণ আপনি রাষ্ট্রীয় সভ্যতায় বসবাস করেন৷ বুকভরা তাজা দীর্ঘশ্বাস ভরে দিয়েছে সুসভ্য রাষ্ট্রীয় সিলমোহর! এক পা-ও নড়বার ক্ষমতা নাই!!

…ওইত্তোর রাষ্ট্রের মায়রে বাপ!


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *